artk
৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

জিয়ার প্রশংসা করায় সিইসির পদত্যাগ চাইলেন কাদের সিদ্দিকী

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৫৪৯ ঘণ্টা, সোমবার ১৬ অক্টোবর ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১১২৬ ঘণ্টা, মঙ্গলবার ১৭ অক্টোবর ২০১৭


জিয়ার প্রশংসা করায় সিইসির পদত্যাগ চাইলেন কাদের সিদ্দিকী - রাজনীতি

সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের হাত দিয়ে দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা লাভ করেছে বলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা যে মন্তব্য করেছেন এ জন্য তার পদত্যাগ চেয়েছেন কাদের সিদ্দিকী। সেই সঙ্গে তার দল কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপ বয়কট করেছে।

সোমবার নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপ শেষে বের হয়ে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এ কথা বলেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, “জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেছেন- সিইসি এ কথা বলতে পারেন না। জিয়া গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করে থাকলে কেউ না কেউ বহুদলীয় গণতন্ত্র হত্যা করেছ। তার এই বক্তব্যের সঙ্গে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ একমত নয়। সিইসি অন্য কমিশনারদের সঙ্গে আলোচনা না করে এককভাবে এ কথা বলেছেন। এ কারণে আমরা সংলাপ বয়কট করেছি। আমি তার পদত্যাগ দাবি করছি।”

এর আগে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আড়াই ঘণ্টা ধরে সংলাপ করে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ। দলটি নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দেয়া, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন এবং সেনা মোতায়েন করাসহসহ ১৮ দফা দাবি তুলে ধরে। পরে জিয়াউর রহমানের প্রসঙ্গ তুলে তারা সংলাপ বয়কট করে।

উল্লেখ্য, রোববার বিএনপির সঙ্গে সংলাপে বসে নির্বাচন কমিশন। সেখানে বিএনপি ও এর প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের প্রশংসা করেন সিইসি নূরুল হুদা। সূচনা বক্তব্যে তিনি বলেন, “ব্যক্তি হিসেবে এবং দলনেতা হিসেবে জিয়াউর রহমান ছয় বছর রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেন। তার হাত দিয়েই দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র পুনপ্রতিষ্ঠা লাভ করে।”

বিগত বিএনপি সরকারের বিভিন্ন ইতিবাচক কর্মকাণ্ড ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনে বিএনপির ভূমিকা তুলে ধরে সিইসি আরও বলেন, “বিএনপি সফল রাষ্ট্রপরিচালনার সুদীর্ঘ অভিজ্ঞতাসম্পন্ন একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দল। রাষ্ট্র পরিচালনার কাজে বিএনপি সরকার দেশে প্রকৃত নতুন ধারার প্রবর্তন করেছে।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/একিউএফ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত