artk
৮ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সোমবার ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৬:২৪ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

দুপচাঁচিয়ায় বাবাসহ সেই বখাটের আত্মসমর্পন

বগুড়া প্রতিনিধি | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৬৪৯ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ১২ অক্টোবর ২০১৭


দুপচাঁচিয়ায় বাবাসহ সেই বখাটের আত্মসমর্পন - কোর্ট-কাচারি

বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলায় মেধাবী স্কুলছাত্রী রাফিজা আকতার সাথী আত্মহত্যার মামলার প্রধান আসামি হুজাইফ ইয়ামিন এবং তার বাবা আমিনুর ইসলাম মীর অবশেষে আদালতে আত্মসমর্পন করেছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৪ এ তারা আত্মসমর্পন করে। পরে আসামিরা জামিনের আবেদন করলে শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে দুপচাঁচিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক বাবা-ছেলের আদালতে আত্মসমর্পনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ওই দুই জনের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা এবং পুলিশের ওপরে হামলার ঘটনায় দুটি মামলা আছে। ওই দুই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা যথাক্রমে উপ-পরিদর্শক(এসআই) খায়রুল ইসলাম ও জাকির হোসেন তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পৃথকভাবে আদালতে ৭ দিন করে রিমান্ড আবেদন করেছেন। আগামি ১৫ অক্টোবর সেই আবেদন ওপর শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত।

উল্লেখ্য, বখাটে হুজাইফ ইয়ামিনের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে গত ৮ অক্টোবর রাতে নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করে রাজিফা আকতার সাথী। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। একইসময় অভিযুক্ত বখাটে হুজাইফ ইয়ামিনকে (২০) আটক করতে হেরুঞ্জ গ্রামে অভিযান চালানো হয়। এসময় তারা গ্রামবাসীকে সঙ্গে নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে পুলিশের ৫ জন কর্মকর্তা আহত হন। ওই রাতে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে দ্বিতীয় দফা অভিযান চালিয়ে ২৬ ব্যক্তিকে আটক করে। তার আগেই বখাটে হুজাইফ ইয়ামিনসহ তার পরিবারের সদস্যরা আত্মগোপন করেন।

ওই ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি মামলা করা হয়। আত্মহত্যার প্ররোচণায় মেয়ের বাবা গোলাম রব্বানী হুজাইফ ইয়ামিন এবং তার বাবা আমিনুর ইসলাম মীরকে আসামি একটি মামলা করেন। এবং দায়িত্বপালনে বাধা ও হামলার অভিযোগে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহিম ২৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪০-৫০ জনকে আসামি করে আরেকটি মামলা করেন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/জেএমআর/এসডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত