artk
৮ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সোমবার ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৬:২২ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

রাখাইন মুক্ত করার অঙ্গীকার রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের

বিদেশ ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ২০২৭ ঘণ্টা, বুধবার ১১ অক্টোবর ২০১৭


রাখাইন মুক্ত করার অঙ্গীকার রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের - বিদেশ

কথিত রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য মুক্ত করার অঙ্গীকার করেছে। রোহিঙ্গা সংকটের মধ্যে তারা এক ভিডিও বার্তায় এক মাসের অস্ত্র বিরতির ঘোষণা দিয়েছিল। অস্ত্র বিরতি শেষে আবারও এক ভিডিও বার্তায় তারা রাখাইন মুক্ত করার ঘোষণা দেয়।

মিয়ানমারের দাবি, গত ২৫ অক্টোবর রাখাইনের সেনা চৌকিতে হামলা চালায় দ্য আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা) নামধারী রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা। এরপর বিদ্রোহীদের উৎখাত করতে সেখানে সেনা অভিযান শুরু হয়। কিন্তু বাস্তবতা হলো, আরও আগে থেকেই মিয়ানমারের সেনাবাহিনী মুসলিম নিধন শুরু করে। আর রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের হামলার বিষয়টি এক সাজানো নাটক বলেই মনে করা হয়।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বর হামলার মুখে গত দেড় মাসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে অন্তত ৬ লাখ রোহিঙ্গা। জাতিসংঘ সেনা অভিযানকে জাতিগত নিধন বলে মন্তব্য করেছে।

অভিযোগ আছে, রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা মিয়ানমারের সেনাদের মদদপুষ্ট। এমনও দেখা গেছে, রাখাইন সীমান্তে সেনা চৌকির অদূরে লাঠি হাতে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আসায় সহায়তা করছে আরসা সদস্যরা।

ইন্ডিয়া টুডের খবরে বলা হয়, তারা রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের একটি ভিডিও পেয়েছে যেখানে নতুন করে হামলার ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে। ভিডিওতে বলা হয়, ‘আসসালামু আলাইকুম। আমরা আরাকানের মুসলিম। সেনারা আমাদের ওপর নিপীড়ন চালাচ্ছে। আমাদের হত্যা করা হচ্ছে। আরাকান মুসলিমদের নিশ্চিহ্ন করে দেয়ার চেষ্টা চলছে। আমরা মিয়ানমার আর্মির বিরুদ্ধে প্রতিবাদের চেষ্টা করছি। আরাকানের জনগণের জন্য আমরা জীবন উৎসর্গ করার শপথ নিয়েছি। আমরা সব মুসলিমকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার এবং আমাদের জন্য দোয়া করার আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা সফল হব। মিয়ানমার আর্মির নিপীড়নমুক্ত হবে আরাকান। রোহিঙ্গা আরাকান মুসলিম জিন্দাবাদ।

আরসার প্রতিষ্ঠাতা আতাউল্লাহ নামের এক রোহিঙ্গা। যার জন্ম পাকিস্তানে, বেড়ে উঠেছেন সৌদি আরবে। এ কারণে অনেকে রোহিঙ্গা বিদ্রোহের সঙ্গে পাকিস্তান ও সৌদি আরবের যোগসূত্র খোঁজার চেষ্টা করেন। তবে এ পর্যন্ত রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের সঙ্গে কোনো দেশ বা কোনো সংগঠনের সঙ্গে জড়িত কি না তা জানা যায়নি। আরসার পক্ষ থেকেও দাবি করা হয়, তারা শুধু রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মুক্তির জন্য লড়াই করছে, আন্তর্জাতিক কোনো যোগযোগ তাদের নেই।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এনডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত