artk
৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার ২১ নভেম্বর ২০১৭, ২:১৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম

ভারতীয় জেলেদের আক্রমণে জাল ফেলে পালিয়ে আসছে বাংলাদেশিরা

ইমরান হোসেন, বরগুনা প্রতিনিধি | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২২৭ ঘণ্টা, বুধবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৬৩৮ ঘণ্টা, বুধবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭


ভারতীয় জেলেদের আক্রমণে জাল ফেলে পালিয়ে আসছে বাংলাদেশিরা - বিশেষ সংবাদ

বাঘ-বিড়ালের লড়াইয়ে কে জিতবে আর কে হারবে? উত্তর সবার জানা। কচ্ছপ আর খরগোশের গল্পে কচ্ছপ জিতেছিল। এটা বইয়ের গল্প। কিন্তু বাস্তব বড় কঠিন। সাগরের পানি, ঢেউ আর বড় ট্রলিং জাহাজের সঙ্গে আমাদের ট্রলার পেরে ওঠবে কিভাবে? এসব প্রশ্নগুলো ছিল জাল-দড়ি ফেলে আসা চট্টগ্রামের এফবি লালমোহন ট্রলারের মাঝি নিতেন্দ্রনাথ পালের।

গত বৃহস্পতিবার বঙ্গোপসাগরের গভীর সমুদ্রে ভারতীয় ট্রলিং জাহাজের আক্রমণের শিকার হয়ে চট্টগ্রাম না গিয়ে বরগুনার পাথরঘাটার বিএফডিসি ঘাটে এসে আশ্রয় নেন তারা।

ঘটনার বর্ণনা জানতে চাইলে নিতেন্দ্রনাথ পাল নিউজবাংলাদেশকে বলেন, “বৃহস্পতিবার বঙ্গোপসাগরের গভীরে গিয়ে জাল ফেলে মাছ ধরছিলেন তারা। তাদের পাশেও ছিল অনেক বাংলাদেশি ট্রলার। তবে এর মধ্যে দূর থেকে ভারতীয় পতাকাসহ একটি ট্রলিং জাহাজ দেখতে পায় তারা। কিছুক্ষণের মধ্যেই তাদের প্রায় কাছে চলে আসে ভারতীয় জেলেভর্তি ট্রলিং জাহাজটি। তাদের সরে যেতে বলে হ্যান্ডমাইক নিয়ে। তারা প্রথমে ভাবেনি তাদের সাথে কি ঘটতে চলছে। এর মধ্যেই তাদের ট্রলারের দিকেই আসতে শুরু করে ভারতীয়রা। তারা জাল কেটে দিয়ে জীবন বাঁচিয়ে ট্রলার নিয়ে পাশে সরে যায়। ভারতীয়রা তাদের জাহাজ থামিয়ে কারেন্ট জাল ফেলে মাছ ধরা শুরু করে। এমন সময় তাদের কেন মাছ ধরতে দিল না-এমন প্রশ্নের জবাবে ভারতীয়রা তাদের জাহাজে থাকা ছোট ছোট পাথর মারতে শুরু করে বাংলাদেশিদের ওপর।”

এমন ভয়ানক পরিস্থিতিতে তারা তাদের জাল-দড়ি ফেলে পাথরঘাটায় এসে আশ্রয় নেয়।

একই ট্রলারের গোপীন্দ্রনাথ পাল, সুনীল পাল, মতিলাল ঠাকুর, আজগর ঘরামী, হিরন ঘরামী, নির্মল তালুকদারসহ বেশ কয়েকজন জেলে নিউজবাংলাদেশকে বলেন, বাংলাদেশের জলসীমা থেকে ভারতের কাকদ্বীপ নামক একটি দ্বীপ একদম কাছে হওয়ায় সে এলাকার জেলেরা বাংলাদেশ সীমান্তে মাছ ধরছে। আর তাদের বেশিরভাগ ট্রলারে মাছ ধরা অত্যাধুনিক জালসহ আধুনিক বিভিন্ন সরঞ্জাম থাকায় সমুদ্রে মাছের অবস্থান নির্ণয় করে মাছ ধরছে।

এ সময় বরগুনার মালিকানাধীন বেশ কয়েকটি ট্রলারের জেলেদের সাথে কথা বললে তারা নিউজবাংলাদেশকে বলেন, প্রতি বছর ইলিশের ভরা মৌসুম ও মা ইলিশ সংরক্ষণ সময়ে বাংলাদেশের সীমান্তে নির্বিঘ্নে মাছ ধরছে ভারতীয়রা। তাদের পতাকা ওরছে জাহাজে, তবে কোস্টগার্ড বা নৌবাহিনী কিছুই বলছে না। তাদের জেলেরা বাধা দিলে বড় জাহাজ দিয়ে ধাক্কা মেরে সাগরের মধ্যেই ট্রলার ডুবিয়ে দেয়ার হুমকি দেয় ভারতীয় জেলেরা।

জেলেরা অভিযোগ করে আরও জানান, বন্যার সময় স্রোতে ভারতের সীমান্তে ঢুকে পড়লেও তাদের জেল জরিমানাসহ শারীরিক নির্যাতন করা হয়। কিন্তু বাংলাদেশ সরকারের নিষিদ্ধঘোষিত কারেন্ট জাল দিয়ে ভারতীয় জেলেরা মাছ ধরছে বাংলাদেশ সীমান্তে। এমন অবস্থা চলতে থাকলে এক সময়ে সাগরে মাছ থাকবে না। তাই সাগরে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ দাবি করছেন জেলেরা।

এদিকে, বাংলাদেশের জলসীমায় ভারতীয় জেলেদের প্রবেশ সম্পর্কে পাথরঘাটা ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী নিউজবাংলাদেশকে বলেন, “বাংলাদেশের জলসীমায় ভারতীয়রা প্রবেশ করছে এমন অভিযোগ পাথরঘাটার জেলেরা করেছে। প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা সাগরে নজরদারি বাড়াবে বলে আশ্বস্ত করেছেন।”

তবে এ বিষয়ে কোস্টগার্ডের সাথে কথা বললে তারা কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি।

বর্তমানে বঙ্গোপসাগরের বাংলাদেশ উপকূলে ধরা পড়ছে প্রচুর পরিমাণে ইলিশ। বাংলাদেশের জলসীমার ইলিশ ভারতের থেকে সুস্বাদু হওয়ায় ভারতের বাজারে বাংলাদেশের ইলিশের চাহিদাও বেশি। এসব কারণে বাংলাদেশের সমুদ্রসীমার প্রায় ২০০ কিলোমিটার ভেতরে প্রবেশ করে মাছ ধরছে ভারতীয় জেলেরা।

নিউজবাংলাদেশ.কম/ইএইচ/এমএস/এএইচকে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত