artk
৯ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রোববার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১:৩৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং
টানা চতুর্থবার জার্মানির চ্যান্সেলর নির্বাচিত হলেন অ্যাঙ্গেলা ম্যার্কেল                    

শিরোনাম

রাঙামাটির পর্যটন শিল্পে ধস, ঈদে হোটেল-মোটেলে বুকিং নেই

প্রান্ত রনি, রাঙামাটি সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১১১৭ ঘণ্টা, রোববার ২৭ আগস্ট ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৭১১ ঘণ্টা, রোববার ২৭ আগস্ট ২০১৭


রাঙামাটির পর্যটন শিল্পে ধস, ঈদে হোটেল-মোটেলে বুকিং নেই - বিশেষ সংবাদ

পর্যটন শহর রাঙামাটিতে প্রতিবছরই ঈদ ঘিরে বিপুল সংখ্যক পর্যটক সমাগত হয়। কিন্তু এ বছর এর ব্যত্যয় ঘটছে। গত ১৩ জুন ভয়াবহ পাহাড়ধসের পর পর্যটন শিল্পেও বিরাট ধস নেমেছে। এরই প্রভাবে এখানকার হোটেল-মোটেল লোকসানে দিন পার করছে।

এদিকে, অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে অস্বাভাবিকভাবে কাপ্তাই হ্রদের পানি বৃদ্ধি হওয়ায় ১২ আগস্ট বিকেলের পর থেকে এখনো ডুবে রয়েছে ‘সিম্বল অব রাঙামাটি’ খ্যাত ঝুলন্ত সেতুটি।

হোটেল নাদিশা ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্থাপক জসিম উদ্দিন বলেন, “পাহাড় ধসের পর আমাদের এখন পর্যন্ত তেমন রুম বুকিং হচ্ছেনা। প্রতি বছর ঈদকে কেন্দ্র করে আমাদের পর্যাপ্ত রুম বুকিং হয়, কিন্তু এ বছর একদম শূন্যে নেমে গেছে। আগামী একবছরেও এ লোকসান থেকে ফিরিয়ে আসার সম্ভাবনা নেই।”

হোটেল সুফিয়া ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্থাপক সোহেল হাওলাদার বলেন, “ভূমিধস, কাপ্তাই হ্রদের পানি বৃদ্ধি ও রাঙামাটির মূল আকর্ষণ ঝুলন্ত সেতুটি ডুবে থাকার কারণে আমাদের এবছর বুকিং একেবারে কম, মাত্র দু’একটা রুম বুকিং পেয়েছি। তারমধ্যে পর্যটকরাও এখন আতঙ্কিত, কখন আবার পাহাড় ধসে মানুষ মারা যায়। তারমধ্যে কাপ্তাই হ্রদে অতিমাত্রায় পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পর্যটকরা রাঙামাটি আসতে চাইছে না।”

রাঙামাটি পর্যটন করপোরেশনের নির্বাহী কর্মকর্তা মহসিন পাটোয়ারি নিউজবাংলাদেশকে জানিয়েছেন, এ বছর পাহাড়ধসের সাথে সঙ্গে পর্যটন শিল্পেও ধস নেমেছে। পুরাদমে রাস্তা ঠিক হওয়ার পর ভেবেছি এই ঈদে কিছু রুম বুকিং পাবে, কিন্তু তেমন আশানুরূপ রুম বুকিং পাইনি।

নিউজবাংলাদেশ.কম/পিআর/এমএস/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য