artk
৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার ২১ নভেম্বর ২০১৭, ২:২৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম

দেহের ভেতরের ‘কলকব্জা’ পরিষ্কার রাখার ৫ উপায়

লাইফস্টাইল প্রতিবেদক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ০৯৩২ ঘণ্টা, রোববার ২০ আগস্ট ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৫০৯ ঘণ্টা, রোববার ২০ আগস্ট ২০১৭


দেহের ভেতরের ‘কলকব্জা’ পরিষ্কার রাখার ৫ উপায় - লাইফস্টাইল

ময়লা জমলে আমরা দেহের বাইরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গগুলো ধুয়ে পরিষ্কার করি আর তাতে রোগজীবানু থেকে রক্ষা পাই। এরকম মানব দেহের ভেতরে অসংখ্য কলকব্জা পরিষ্কার করা প্রয়োজন তা না হলে দ্রুত বিভিন্ন রোগে পড়তে পারেন। তাই আসুন জেনে নেই কীভাবে করবেন তার উপায় জেনে নেই।

লাইফস্টাইলে কিছুটা পরিবর্তন এনে শরীরকে টক্সিনমুক্ত করা অর্থাৎ শরীর থেকে ক্ষতিকর পদার্থগুলো অপসারণ করার এই প্রক্রিয়াকে বলা হয় বডি ডিটক্সিং।

প্রতি মাসের বা সপ্তাহের একটি নির্দিষ্ট দিন নির্ধারণ করে নিয়মিত বডি ডিটক্সিং করলে আপনি যা ফলাফল পাবেন তা সত্যি অবিশ্বাস্য।

# আপনার লিভারের বিষাক্ত পদার্থ অপসারণের ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।

# রক্ত পরিষ্কার হবে।

# অন্ত্র, কিডনি, এবং ত্বক মাধ্যমে শরীরে জমা হওয়া ক্ষতিকর পদার্থ অপসারিত হবে।

# শরীর অভ্যন্তরীণ ক্ষতিগ্রস্ত কোষগুলো সারতে সময় পাবে।

# শরীরের মেটাবলিসম হার বৃদ্ধি পাবে ফলে অনিয়ন্ত্রিত ভাবে ওজন বাড়বে না।

# সার্বিকভাবে দেহের অভ্যন্তরীণ অঙ্গ-প্রত্তঙ্গ সুস্থ থাকবে।

বডি ডিটক্সিংয়ের খুব সহজ ৫টি উপায়:

১. প্রতিদিন ঘুম থেকে ওঠার পর, খালি পেটে গরম লেবু-পানি খাওয়া। এটি হজম শক্তি বাড়ানোর সাথে সাথে শরীরের বিভিন্ন ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস ধ্বংস করতে সাহায্য করে।

২. দিনে অন্তত ৩ বার সবুজ চা বা গ্রিন-টি খাওয়া। এর অনেকগুলো উপকারিতার মধ্যে অন্যতম একটি হলো- দেহের অবাঞ্চিত মেদ কমাতে সহায়তা করা।

৩. ডিটক্সিং-এর দিন, খাবার হিসেবে শুধু বিভিন্ন ধরনের সহজপাচ্য গ্রিন জুস বা গ্রিন স্যুপ খাওয়া। (রেসিপি দেখুন) পাকস্থলীকে বিশ্রাম দেয়া ও শরীরের প্রয়োজনীয় পুষ্টি যোগানো এর প্রধান উদ্দেশ্য।

৪. প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা, যা ঘাম ও প্রস্রাবের মাধ্যমে ক্ষতিকর পদার্থ বের হয়ে যেতে সাহায্য করবে।

৫. চিনি খাওয়ার পরিমাণ কমিয়ে দেয়া। অতিরিক্ত চিনি দেহের জন্য বিষ ছাড়া কিছুই না। সুস্বাদু এই বিষটি যদি পরিহার করতে না পারেন, তাহলে প্রতিদিন ডিটক্সিং করেও কোনো লাভ হবে না।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএস

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য