artk
৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ৪:৪০ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

কুষ্টিয়ায় আমগাছে ঝুলিয়ে শিশু নির্যাতনের মূলহোতা গ্রেপ্তার

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৫০৫ ঘণ্টা, শনিবার ১২ আগস্ট ২০১৭


কুষ্টিয়ায় আমগাছে ঝুলিয়ে শিশু নির্যাতনের মূলহোতা গ্রেপ্তার - জাতীয়

কুষ্টিয়ার কুমারখালীর ছেঁউড়িয়ায় মোবাইল চুরির অপবাদে গাছে ঝুলিয়ে দুই শিশু নির্যাতনের মূলহোতা মীর আক্কাস আলী মিরুকে (৪৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার ভোরের দিকে পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার মাঝদিয়া বড়পাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে এক আত্মীয়ের বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে বুধবার রাতেই কুমারখালি থানা পুলিশ এ ঘটনার অপর দুই হোতা তানজিল ও তার শাশুড়ি রোকেয়া খাতুনকে গ্রেপ্তার করে। এ নিয়ে আলোচিত এ ঘটনার এজাহারভুক্ত তিন আসামিকেই গ্রেপ্তার করল পুলিশ।

কুমারখালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল খালেক জানান, শিশু নির্যাতনের বিষয়টি অত্যন্ত স্পর্শকাতর। যে কারণে বিষয়টি অত্যাধিক গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। গ্রেপ্তার হওয়া এজাহারভুক্ত তিন আসামির পুলিশের পক্ষ থেকে রিমান্ড চাওয়া হবে।

কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো. জহির রায়হান জানান, নির্যাতিত শিশু ও তার পরিবারকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব রকম সহায়তা দেয়া হবে। ইতোমধ্যেই অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাক আহমেদ ও সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক রোকসানা পারভিন ও প্রবেশন অফিসার সুশান্ত কুমার পাল নির্যাতিত শিশু জুয়েলকে দেখতে তার বাড়িতে যান এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেছেন।

সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রবেশন অফিসার সুশান্ত কুমার পাল জানান, নির্যাতিত সেই শিশুর বাড়িতে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলেছি। শিশুটির মা-বাবা না থাকায় আমরা তাকে পুর্নবাসন কেন্দ্রে নিয়ে যেতে চেয়েছিলাম কিন্তু শিশুটিসহ তার আত্মীয়স্বজনরা নির্যাতিত সেই শিশুকে যেতে দেয়নি। জেলা প্রশাসক মো. জহির রায়হানের নির্দেশনায় নির্যাতিত শিশু ও তার পরিবারকে সব রকম সহায়তা দেয়া হবে।

এদিকে, দুই শিশু নির্যাতনের ঘটনায় দায়ের করা মামলার বাদীকে মামলা তুলে নিতে এলাকার প্রভারশালীরা হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

মামলার বাদী রব্বেল ও গোপনে নির্যাতনের ভিডিও ধারণ করা স্থানীয় যুবক আশরাফুলসহ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীকে হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেছেন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসএমজে/এমএস

 

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত