artk
২ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, শনিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ৩:০১ অপরাহ্ন

শিরোনাম

ষোড়শ সংশোধনী বাতিল: রায়ের ‘অপ্রাসঙ্গিক’ মন্তব্য এক্সপাঞ্জ করার দাবি

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৩৫৯ ঘণ্টা, শনিবার ১২ আগস্ট ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৪০৪ ঘণ্টা, শনিবার ১২ আগস্ট ২০১৭


ষোড়শ সংশোধনী বাতিল: রায়ের ‘অপ্রাসঙ্গিক’ মন্তব্য এক্সপাঞ্জ করার দাবি - জাতীয়

ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে দেয়া আপিল বিভাগের রায়ের পর্যবেক্ষণে ‘অপ্রাসঙ্গিক’ মন্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাকটিভিস্ট ফোরাম (বোয়াফ)।

শনিবার বোয়াফের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রাকিবের স্বাক্ষরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি জানানো হয়।

প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা মামলার ‘ফ্যাক্ট অব ইস্যুর’ সঙ্গে সম্পর্কিত নয় এমন ‘অনেক অপ্রাসঙ্গিক’ মন্তব্য করেছেন যার মধ্যে ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা কোনো একক ব্যক্তির কারণে হয় নাই’-এই কথাটিও ছিল, যা শুনে পুরো জাতি আজ মর্মাহত। আর তাই প্রধান বিচারপতির উচিত ও আমাদের দাবি যতদ্রুত সম্ভব অপ্রাসঙ্গিক মন্তব্যগুলো এক্সপাঞ্জ করা।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বোয়াফ সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, “১৯৪৮ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত বাঙালির স্বাধীনতার লড়াইয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্ব ও তার অবদানের কথা নিশ্চয়ই আমাদের প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা জানেন। কিন্তু দুঃখজনক হলো, স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর হঠাৎ মামলার সঙ্গে সম্পর্কিত না হওয়া সত্ত্বেও এই ধরনের অপ্রাসঙ্গিক কথা নতুন প্রজন্মের সামনে তুলে ধরা হচ্ছে, যা উদীয়মান যুব সমাজকে বিভ্রান্তকরণ বলেও আমি মনে করছি।”

তিনি আরও বলেন, “সরকার ও বিচার বিভাগ একে অপরের প্রতিপক্ষ না হয়ে বরং দেশ ও জাতির স্বার্থে মামলার সঙ্গে সম্পর্কিত নয় এমন সব ধরনের অপ্রাসঙ্গিক মন্তব্য এক্সপাঞ্জ করার উদ্যোগ গ্রহণ এবং প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা তার বিতর্কিত মন্তব্য এক্সপাঞ্জ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করার মাধ্যমে সময়ের গ্রহণযোগ্য ও সুন্দর ইতিহাস সৃষ্টি করতে পারেন এবং এটা আমাদেরও দাবি।”

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার নেতৃত্ব, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে বিভ্রান্তিকর মন্তব্যকারী যেই হোক, এ জাতি কখনো ক্ষমা করবে না বলেও মন্তব্য করেন বোয়াফ সভাপতি।

অপরদিকে রায়ের পর্যবেক্ষণে ‘অপ্রাসঙ্গিক’ মন্তব্যের প্রতিবাদে আওয়ামীপন্থি আইনজীবীদের সংগঠন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ তিনদিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

উল্লেখ্য, সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে বৃহস্পতিবার সরকারের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, “প্রধান বিচারপতি তার রায়ে অনেক অপ্রাসঙ্গিক কথা বলেছেন, যা ফ্যাক্ট ইন ইস্যুর সঙ্গে একদমই সম্পর্কিত নয়। তিনি জাতীয় সংসদ সম্পর্কে কটূক্তি করেছেন এবং এই প্রতিষ্ঠানকে হেয় প্রতিপন্ন করেছেন। তাই মনে করি, এসব রাজনৈতিক প্রশ্ন আদালত কর্তৃক বিচার্য হতে পারে না। আমরা তার এই বক্তব্যে দুঃখিত। বাংলাদেশের স্বাধীনতা কোনও একক ব্যক্তির কারণে হয় নাই- রায়ের কোনও এক জায়গায় প্রধান বিচারপতি এ কথা লিখেছেন। এ বিষয়ে আমি মর্মাহত।”

এর আগে বুধবার বিকেলে আইন কমিশনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ষোড়শ সংশোধনীর রায় সম্পর্কে কমিশনের চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হক বলেন, “বাংলাদেশ এখন আর জনগণের প্রজাতন্ত্র নয়, বরং এটা বিচারকদের প্রজাতন্ত্রে পরিণত হয়েছে।”

ষোড়শ সংশোধনীর রায় পূর্বধারণাপ্রসূত এবং আগে থেকে করা চিন্তাভাবনার ফসল বলেও মত দেন তিনি।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত