artk
২ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, শনিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ৩:০৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম

মা‌নিকগ‌ঞ্জে শিশু নাতনিকে ধর্ষণ

মা‌নিকগঞ্জ সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১১৪২ ঘণ্টা, শনিবার ১২ আগস্ট ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২৫১ ঘণ্টা, শনিবার ১২ আগস্ট ২০১৭


মা‌নিকগ‌ঞ্জে শিশু নাতনিকে ধর্ষণ - জাতীয়
ছবি প্রতীকী

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলায় সাত বছরের নাতনি‌কে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে চাচাতো নানার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শুক্রবার বি‌কে‌লে উপজেলা ধল্লা ইউনিয়নের মধ্যধল্লা গ্রামে এ ঘটনা‌টি ঘ‌টে‌। শুক্রবার রাতে এ মামলা করা হয়।

অভিযুক্ত ধর্ষক নানা আনোয়ার আলী (৪৫) ওই গ্রামের মৃত মতি মিয়ার ছেলে। তিনি সম্পর্কে শিশুটির মায়ের চাচা হন।

পুলিশ জানায়, সিংগাইর ‍উপজেলার ধল্লা ইউনিয়নের মধ্যধল্লা গ্রামের ধর্ষ‌ণের শিকার শিশু‌টি শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে তার সহপাঠী তামান্নার সঙ্গে খেলার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। এ সময় আনোয়ার আলী মুখ চেপে ধরে শিশুটিকে তার ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করেন।

নির্যাতিত শিশুটি বাড়িতে গিয়ে তার মা ও প্রতিবেশীদের কাছে ঘটনাটি খুলে জানানোর পরেই অভিযুক্ত আনোয়ার আলী বাড়ি থেকে পালিয়ে যান।

শিশুটির মা জানান, আমি অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় এক মাস ধরে মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়ি মধ্য ধল্লা গ্রা‌মে এসে থাক‌ছি। আমার চাচা আনোয়ার আলী সুযোগ বুঝে আমার শিশু কন্যার ওপর অমানবিক নির্যাত‌নের ঘটনাটি ঘটালো।

তিনি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

আনোয়ার আলীর বোন মরিয়ম জানায়, তার ভাই শুক্রবার বিকেলে বাড়ি থেকে বের হয়ে ‌গে‌ছেন। রাতে ঘটনা‌টি জানাজা‌নি হওয়ার পর শ‌নিবার সকাল পর্যন্ত বাড়ি ফিরে আসেননি। আনোয়ার আলীর স্ত্রী দীর্ঘদিন ধরে বিদেশে থাকেন।

সিংগাইর ধল্লা ইউনিয়ন প‌রিষ‌দের চেয়ারম্যান মো. জাহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া জানায়, সাত বছ‌রের শিশু‌কে যৌন নির্যাত‌নের ঘটনাটি আমি লোক মারফত খবর পে‌য়ে‌ছি।

সিংগাইর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খোন্দকার ইমাম হোসেন জানায়, শুক্রবার রাতে এ ব্যাপারে শিশুটির বাবা বাদী হ‌য়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে। আর শিশুটিকে নানিসহ রা‌তেই তা‌দের জিম্মায় নেয়া হয়। শ‌নিবার সকাল সা‌ড়ে ১০টার দি‌কে ধর্ষ‌ণের শিকার শিশু‌কে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য হাসপাতা‌লে পাঠা‌নো হ‌য়ে‌ছে।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসআরকে/এমএস

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত