artk
৮ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, শনিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

নীলফামারীর ৪ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী বিএনপির ১০ নেতা

সুমন মুখার্জী, নীলফামারী সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২৫৮ ঘণ্টা, সোমবার ১৭ জুলাই ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ২০৪৯ ঘণ্টা, সোমবার ১৭ জুলাই ২০১৭


নীলফামারীর ৪ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী বিএনপির ১০ নেতা - রাজনীতি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নীলফামারীর চারটি আসনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী বিএনপির ১০ নেতা গণসংযোগ শুরু করেছেন। প্রকাশ্যে কোনো সভা-সমাবেশ বা দলীয় কর্মসূচি পালন না করলেও গণসংযোগে পিছিয়ে নেই তারা। নীরবে বার্তা পৌঁছে দিচ্ছেন তৃণমূল নেতাকর্মীদের কাছে।

দলীয় একাধিক সূত্র জানায়, নির্বাচনে অংশগ্রহণের ব্যাপারে কেন্দ্র থেকে এখনো সুনির্দিষ্ট কোনো সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি। তবে, প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। তাই বসে নেই নীলফামারীর বিএনপি নেতাকর্মীরা। একই সঙ্গে জেলার চারটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয় নিশ্চিতে জোর প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, নীলফামারী-১ (ডোমার-ডিমলা) আসনে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ভাগ্নে ও জেলার সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শাহরিন ইসলাম তুহিন ও ২০০৮ সালের নির্বাচনে এ আসনে বিএনপির প্রার্থী রফিকুল ইসলাম চৌধুরী। এখনও পর্যন্ত নীলফামারী-১ আসনে বিএনপির একক প্রার্থী হিসেবে তার নামই শোনা যাচ্ছে।

নীলফামারী-২ (সদর) আসনে জেলার সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান জামান, জেলা যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক সোহেল পারভেজ, পৌরসভা শাখার সভাপতি জহুরুল ইসলাম।

নীলফামারী-৩ (জলঢাকা-আংশিক কিশোরগঞ্জ) আসনে জলঢাকা উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও পৌর মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল কমেট চৌধুরী। এই আসনে এখনও পর্যন্ত এককভাবে তার নামই শোনা যাচ্ছে।

এছাড়া নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-আংশিক কিশোরগঞ্জ) আসনে মনোনয়ন লাভে গণসংযোগ শুরু করেছেন সাবেক এমপি আমজাদ হোসেন সরকার, নির্বাহী কমিটির সদস্য মিসেস বিলকিস ইসলাম এবং কণ্ঠশিল্পী ও জাসাস নেত্রী বেবী নাজনীন।

নিউজবাংলাদেশের সঙ্গে কথা হলে বিএনপির রংপুর বিভাগীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও নীলফামারী জেলার বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান জামান বলেন, “নানা বাধা-বিপত্তির মধ্যেও আমরা তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে কাজ করছি। মনোনয়নতো সবাই চাইতে পারেন। দলীয় চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া যার হাতে ধানের শীষ তুলে দেবেন, আমরা সবাই এক হয়ে তার জন্যই কাজ করবো।”

এদিকে, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শাহরিন ইসলাম তুহিন নিউজবাংলাদেশকে বলেন, “আশা করছি আমিই মনোনয়ন পাবো। সুপ্রিম কোর্ট এবং স্থানীয় রাজনীতিতে আমার সক্রিয় কর্মকাণ্ড রয়েছে, গ্রহণযোগ্যতাও রয়েছে। আর দল তরুণদের মূল্যায়ন করলে আমারই পাওয়ার কথা। সে হিসেবে আমি পূর্ণ আশাবাদী।”

এছাড়া ভবিষ্যতে সাংবাদিকদের উন্নয়নে কাজ করার কথাও তুলে ধরেন তিনি। 

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসএম/এমএস/কেকে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত