artk
৬ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭:৩০ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

খুলনা-১ আসন
আওয়ামী লীগের প্রার্থী আধা ডজন, স্বস্তিতে বিএনপি

শেখ হেদায়েতুল্লা, খুলনা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৮৪৮ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ১৩ জুলাই ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ২২৫৪ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ১৩ জুলাই ২০১৭


আওয়ামী লীগের প্রার্থী আধা ডজন, স্বস্তিতে বিএনপি - বিশেষ সংবাদ

সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী বছরের শেষ দিকে বা ২০১৯ সালের প্রথম দিকে অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় নির্বাচন। আগামী নির্বাচন বর্তমান সরকারের অধীনে নাকি সহায়ক সরকারের অধীনে হবে তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে চলছে জোর আলোচনা। কিন্তু এর মধ্যেই ভেতরে ভেতরে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে সব রাজনৈতিক দল। নিজেদের সম্ভাব্য প্রার্থী বাছাইয়ে মাঠ জরিপও শুরু করেছে তারা।

আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দলীয় প্রার্থী ঠিক করতে জরিপ করছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। প্রতিটি আসনের জন্য তিন জন করে প্রার্থী বাছাই করছে দলটি।

অন্যদিকে দেশের বৃহত্তম দল বিএনপি গত নির্বাচন বর্জন করলেও এবার জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের কথা বলে আসছে। নির্বাচনের প্রস্তুতি হিসেবে আসনভিত্তিক সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকাও করছে দলটি। প্রাথমিকভাবে ৩০০ আসনের জন্য ৯ শতাধিক প্রার্থীর তালিকা করেছে দলটি। অন্য দলগুলোও তাদের সম্ভাব্য প্রার্থীদেরর তালিকা তৈরি করছে।

এরই মধ্যে ক্ষমতাসীন মহাজোট সরকার, বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি এবং বিরোধী দল জাতীয় পার্টিসহ অন্যান্য দলগুলোর সম্ভাব্য প্রার্থীরা নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু করেছে। ঈদুল ফিতর এবং এর পর থেকে সেই তৎপরতা অনেকটাই বেড়ে গেছে। এখন পর্যন্ত বড় দুই জোটের একাধিক প্রার্থী সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে জনসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছে। অনেকে কেন্দ্রিয় নেতাদের তুষ্ট করতেও তৎপর রয়েছে।

খুলনা জেলার সুন্দরবন ঘেষা দাকোপ উপজেলা ও বটিয়াঘাটা উপজেলা নিয়ে খুলনা-১ (দাকোপ-বটিয়াঘাটা) আসন গঠিত। এই আসনে ক্ষমতাসীন মহাজোটের নেতৃত্বদানকারী আওয়ামী লীগের রয়েছে প্রায় আধা ডজন প্রার্থী। এ আসনে আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীন বিরোধও রয়েছে। অন্যদিকে একক প্রার্থী নিয়ে স্বস্তিতে রয়েছে বিএনপি।

সূত্রমতে, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ খুলনা-১ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি নিয়মিত দাকোপ ও বটিয়াঘাটা উপজেলায় দলীয় বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে অংশ নিচ্ছেন। ১৯৯১ সালে এই আসন থেকে নির্বাচিত হয়ে বিরোধী দলীয় হুইপের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। জেলার শীর্ষ নেতা হওয়ায় মনোনয়নের ক্ষেত্রে বিশেষ হারুন সুবিধা পাবেন বলে তার অনুসারীরা আশা করছেন। তাছাড়া তিনি জেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান।

অন্যদিকে বর্তমান এমপি ও বটিয়াঘাটা  উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি পঞ্চানন বিশ্বাস আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী। তিনি জানান, সংসদ সদস্যের দায়িত্ব পালন ও দলীয় কর্মকাণ্ডে অংশ গ্রহণের পাশাপাশি আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য তিনি প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তিনি এ আসন থেকে তিনবার নির্বাচিত এমপি।

সাবেক সংসদ সদস্য ননী গোপাল মন্ডল ২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ হতে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করলেও জয়ী হতে পারেননি। তাকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। যদিও পরে বহিস্কার আদেশ প্রত্যাহার করা হয়। এবারও মনোনয়ন পাওয়ার জন্য তিনি জোরালোভাবে দাবি করবেন বলে তার অনুসারীরা জানিয়েছেন।

এদিকে দাকোপ উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আবুল হোসেন এ আসনে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য বেশ তৎপরাতা চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া বটিয়াঘাটা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মনোরঞ্জন মন্ডলও মনোনয়ন পেতে বিভিন্নভাবে দেন দরবার চালিয়ে যাচ্ছেন।

অন্যদিকে, একক প্রার্থী নিয়ে স্বস্তিতে আছে বিএনপি তথা ২০ দলীয় জোট। অন্য কোনো প্রার্থী না থাকায় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমির এজাজ খানের মনোনয়ন প্রায় নিশ্চিত। বিগত দুটি নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে তিনি প্রার্থী হলেও পরাজিত হন। আগামী ২০১৯ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের এ দুর্গে আঘাত হানতে চাইছে ২০ দলীয় জোট।

এছাড়া বর্তমান সংসদের বিরোধী দল এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টিও প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের পিএস (প্রাইভেট সেক্রেটারি) শুনীল শুভ রায় জনসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। এ আসনে ইসলামী দলগুলোর সাংগঠনিক কার্যক্রম তেমন একটা দেখা না গেলেও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ তাদের প্রার্থী হিসেবে আলহাজ মাওলানা আবু সাঈদকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে বলেছেন।

উল্লেখ্য, স্বাধীনতার পর ১৯৮৮ সালের নির্বাচন ছাড়া সব নির্বাচনেই খুলনা-১ (দাকোপ-বটিয়াঘাটা) আসনে জয়লাভ করে আওয়ামী লীগ। হিন্দু সম্প্রদায় অধ্যুষিত এ আসনটি আওয়ামী লীগের ‘রিজার্ভ’ আসন হিসেবে পরিচিত। ১৯৯১ সালে এ আসনে শেখ হারুনুর রশীদ ১৯৯৬, ২০০১ ও ২০১৪ সালের নির্বাচনে পঞ্চানন বিশ্বাস এবং ২০০৮ সালের নির্বাচনে ননী  গোপাল মন্ডল নির্বাচিত হন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এএইচকে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য