artk
১০ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, শনিবার ২৪ জুন ২০১৭, ৮:০৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম

ঢাবির শহীদুল্লাহ হলের নাম পরিবর্তন

ডেস্ক নিউজ | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৭৫৭ ঘণ্টা, শনিবার ১৭ জুন ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২২৪ ঘণ্টা, রোববার ১৮ জুন ২০১৭


ঢাবির শহীদুল্লাহ হলের নাম পরিবর্তন - শিক্ষাঙ্গন
ফাইল ফটো

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শহীদুল্লাহ হলের নাম পরিবর্তন করে ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হল করা হয়েছে। ঢাবির জনসংযোগ দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট অধিবেশনে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, আজ দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক হলের নাম পরিবর্তনের বিষয়টি সিনেটে উত্থাপন করেন। পরে সিনেট সদস্যরা উপাচার্যের সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত পোষণ করায় বিষয়টি চূড়ান্ত করা হয়।

এ বিষয়ে ঢাবি উপাচার্য আরেফিন সিদ্দিক বলেন, “বাংলাদেশে শহীদুল্লাহ নামে অনেক গুণীজন ছিলেন। এতদিন হলটি কোন শহীদুল্লাহর নামে তা নির্দিষ্ট ছিল না। নাম পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে বিষয়টি নির্দিষ্ট করা হলো।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী হল শহীদুল্লাহ হল। প্রথমে এই হলের নাম ছিল ঢাকা হল। ১৯৬৯ সালে জ্ঞানতাপস ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহের নামানুসারে এই হলের নাম করণ করা হয় শহীদুল্লাহ্‌ হল। এ হলে মোট ছয়টি ভবন রয়েছে। একটি তিন তলা আভিজাত মূল ভবন, যেটি কার্জন হলের নকশার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এছাড়াও ৫তলা বিশিষ্ট দুটি বর্ধিত ভবন আছে। এতে আনোয়ারুল আজিম ভবন নামে একটি ভবন রয়েছে যেটিতে রয়েছে ছাত্রদের ডাইনিং রুম, ক্যান্টিন, ২ টি ইনডোর গেমস্‌ (টেবিল টেনিস, ক্যারোম) রুম, একটি টিভি রুম, শহীদুল্লাহ্‌ হল ডিবেটিং ক্লাব রুম, ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব অব শহীদুল্লাহ্‌ হল রুম, বাঁধন (স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন) রুম, একটি কনফারেন্স রুম, একটি রিডিং রুম, একটি নিউজ পেপার রুম। আর আছে একটি মেস ভবন যার উপর তলায় হলের সুদৃশ্য মসজিদ আছে। এই হলের প্রশাসনিক ভবন লিটন হল নামে পরিচিত। এছাড়া এখানে একটি লন্ড্রি, সেলুন এবং একটি কারপেন্টার হাউজ আছে।

হলের মাঝখানে একটি বহুমুখী খেলার মাঠ রয়েছে। হলের সামনের বিশাল পুকুর। ১৯৫২ সালে এই পুকুর ঘাটে বসেই ১৪৪ ধারা ভেঙে ভাষা আন্দোলনের মিছিল করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ১৯৭১ সালের মার্চ ২৫ রাতে এই হলের পাশেই পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ গড়ে তোলা হয়।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এএইচকে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য