artk
১২ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই ২০১৭, ৬:৪৪ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

পিস্তল ধরে ইয়াবা সেবনের স্বীকারোক্তি আদায়
টাঙ্গাইলের সেই পুলিশ কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ০৯১৯ ঘণ্টা, শুক্রবার ২১ এপ্রিল ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৪৩৫ ঘণ্টা, শুক্রবার ২১ এপ্রিল ২০১৭


টাঙ্গাইলের সেই পুলিশ কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত - জাতীয়
এএসআই শরিফুল ইসলাম শরিফ (ফাইল ফটো)

টাঙ্গাইলে তিন শিক্ষার্থীকে মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে মাদক মামলায় ফাঁসাতে গিয়ে নিজেই ফেঁসে গেলেন এক পুলিশ কর্মকর্তা। ওই পুলিশ কর্মকর্তা হলেন টাঙ্গাইল সদর মডেল থানার এএসআই শরিফুল ইসলাম শরিফ।

বৃহস্পতিবার অনলাইন নিউজপোর্টাল নিউজবাংলাদেশ.কম এ পিস্তল ধরে ইয়াবা সেবনের স্বীকৃতি আদায়ের সংবাদটি গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর পুলিশ প্রশাসনসহ সব মহলে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়।

লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ সুপার ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে টাঙ্গাইল সদর মডেল থানার এএসআই শরিফুল ইসলাম শরিফকে প্রথমে ক্লোজ করেন। পরে দুপুরে নিউজবাংলাদেশ.কম এ প্রকাশিত সংবাদটি নজরে আসে টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার মাহবুব আলমের। এর পর ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

এদিকে আটক হওয়া তিন শিক্ষার্থীর পরিবারের কাছ থেকে ১২ হাজার টাকা ঘুষ নেয়ার অভিযোগে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মখর্তা (ওসি) নাজমুল হক ভূঁইয়ার গাড়িচালক আজাদকেও ক্লোজ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মাহবুব আলম বলেন, “প্রাথমিকভাবে অভিযুক্ত এএসআই শরিফ এবং সদর থানার ওসির গাড়িচালক আজাদকে শাস্তি প্রদান করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অধিকতর তদন্ত শুরু করা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

এসময় পুলিশ সুপার মাহবুব আলম নিউজবাংলাদেশ.কমকে সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশের জন্য ধন্যবাদ জানান।

তিনি আরও বলেন, “অপরাধী যেই হোক, যে মাপেরই হোক, প্রমাণ পেলে অবশ্যই যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে। অপরাধীদের বিরুদ্ধে আমি সবসময়ই জিরোটলারেন্স।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/ এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত