artk
১ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বুধবার ১৬ আগস্ট ২০১৭, ৮:৫৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম

‘ট্রেড-বেইজড মানিলন্ডারিং অর্থনীতির জন্য চরম হুমকি’

স্টাফ রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১৯৪৯ ঘণ্টা, রোববার ১৯ মার্চ ২০১৭


‘ট্রেড-বেইজড মানিলন্ডারিং অর্থনীতির জন্য চরম হুমকি’ - অর্থনীতি

ঢাকা: ট্রেড-বেইজড মানিলন্ডারিং বাংলাদেশের অর্থনীতির জন্য চরম হুমকি বলে জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

তিনি বলেন, “এখন থেকেই ট্রেড-বেইজড মানিলন্ডারিং প্রতিরোধে সংশ্লিষ্ট সবাইকে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। এটা প্রতিরোধ করতে হলে বাংলাদেশ ব্যাংক ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সঙ্গে যৌথভাবে কমিশনকে কাজ করার ক্ষেত্র সৃষ্টি করতে হবে।”

রোববার দুদকের প্রধান কার্যালয়ে ২০১৭ সালের প্রথম কমিশন সভায় সভাপতিত্বের বক্তব্যে ইকবাল মাহমুদ এসব কথা বলেন। সভায় কমিশনের ছয়টি অনুবিভাগের ৩০টি এজেন্ডা নিয়ে আলোচনাসহ বেশকিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সভায় মানিলন্ডারিং অনুবিভাগের মহাপরিচালক জানান, সম্প্রতি ফোবর্স ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে সর্বোচ্চ ঘুষ লেনদেনকারী দেশের তালিকায় বাংলাদেশের নাম নেই। এবিষয়ে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, “ঘুষ লেনদেন কিছুটা কমেছে। তবে আত্মতৃপ্তির কোনো কারণ নেই।”

এদিকে, সভায় দুদক কমিশনার ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ জানান, তার নেতৃত্বে ইতোমধ্যে ট্রেইড-বেইজড মানিলন্ডারিং প্রতিরোধের জন্য একটি রিসার্চ টিম গঠন করার বিষয়টি চূড়ান্ত পর্যায় রয়েছে।

কমিটির সদস্য হিসেবে থাকবেন দুদকের মানিলন্ডারিং অনুবিভাগের মহাপরিচালক মো. আতিকুর রহমান, কাস্টমস ইনটেলিজেন্সের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান, বিআইবিএমর অধ্যাপক ড. শাহ মো. আহসান হাবিব, বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইনান্সিয়াল ইন্টিলেজেন্স ইউনিটের যুগ্ম পরিচালক মো. আব্দুর রব ও এনবিআরের অতিরিক্ত কমিশনার সৈয়দ মুশফিকুর রহমান।

এবিষয়ে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, “দ্রুত এই রিসার্চ কমিটির তথ্য পাওয়ার পর সম্মিলিতভাবে ট্রেড-বেইজড মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে।” এছাড়া এজেন্ডাভিত্তিক আলোচনায় দুদক চেয়ারম্যন প্রতিটি অনুসন্ধান ও তদন্ত নির্ধারিত সময়ে সম্পন্ন করার বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা দেন।

সভায় দুই হাজার ২০২ জনের প্রস্তাবিত জনবল কাঠামোর অনুমোদন দিয়েছে কমিশন। বর্তমানে কমিশন এক হাজার ৭৩ জন জনবল দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে।

এসময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন কমিশনার এএফএম আমিনুল ইসলাম, সচিব আবু মো. মোস্তফা কামালসহ প্রতিটি অনুবিভাগের মহাপরিচালক ও পরিচালকরা।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএজেড/একিউএফ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য