artk
১২ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই ২০১৭, ৬:৪৫ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

মাগো, ওরা বলে

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২৩০ ঘণ্টা, রোববার ১৯ মার্চ ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১২৩৬ ঘণ্টা, রোববার ১৯ মার্চ ২০১৭


মাগো, ওরা বলে - শিল্প-সাহিত্য
আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ

ঊনিশশ বায়ান্ন সাল- বলতেই যেন মনে আসে অমর একুশের কথা, শহিদদের প্রতি বিমল শ্রদ্ধা ও শোকের দিন। ২১শে ফেব্রুয়ারি ১০ জন করে মিছিলে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে সাহসি বাঙালি। এর একটি মিছিলের সামনে ছিলেন আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ খান। পুলিশ তাদের ট্রাকে তুলে নিয়ে ঢাকার বাইরে রেখে এসেছিল। সেই ভাষা আন্দোলনের শহিদদের স্মরণে তিনি উচ্চারণ করেন, ‘মাগো, ওরা বলে, সবার কথা কেড়ে নেবে/ তোমার কোলে শুয়ে/ গল্প শুনতে দেবে না। বলো, মা, তাই কি হয়?

রোববার এ কবির ১৬তম মৃত্যুবার্ষিকী। কবির স্মরণে তাঁর স্পর্ধিত উচ্চারণের কবিতাটি পাঠকদের স্মরণ করিয়ে দিতে চায় নিউজবাংলাদেশ।

মাগো, ওরা বলে

‘কুমড়ো ফুলে ফুলে
নুয়ে পড়েছে লতাটা,
সজনে ডাঁটায়
ভরে গেছে গাছটা,
আর, আমি ডালের বড়ি
শুকিয়ে রেখেছি—
খোকা তুই কবে আসবি!
কবে ছুটি?’

চিঠিটা তার পকেটে ছিল,
ছেঁড়া আর রক্তে ভেজা।

‘মাগো, ওরা বলে,
সবার কথা কেড়ে নেবে
তোমার কোলে শুয়ে
গল্প শুনতে দেবে না।
বলো, মা, তাই কি হয়?
তাইতো আমার দেরী হচ্ছে।
তোমার জন্য কথার ঝুড়ি নিয়ে
তবেই না বাড়ী ফিরবো।
লক্ষ্মী মা রাগ ক’রো না,
মাত্রতো আর কটা দিন।’

‘পাগল ছেলে’ ,
মা পড়ে আর হাসে,
‘তোর ওপরে রাগ করতে পারি!’

নারকেলের চিঁড়ে কোটে,
উড়কি ধানের মুড়কি ভাজে
এটা সেটা আরো কত কি!
তার খোকা যে বাড়ী ফিরবে!
ক্লান্ত খোকা!

কুমড়ো ফুল
শুকিয়ে গেছে,
ঝ’রে প’ড়েছে ডাঁটা;
পুঁইলতাটা নেতানো,—
‘খোকা এলি?’

ঝাপসা চোখে মা তাকায়
উঠোনে, উঠোনে
যেখানে খোকার শব
শকুনিরা ব্যবচ্ছেদ করে।

এখন,
মা’র চোখে চৈত্রের রোদ
পুড়িয়ে দেয় শকুনিদের।
তারপর,
দাওয়ায় ব’সে
মা আবার ধান ভানে,
বিন্নি ধানের খই ভাজে,
খোকা তার
কখন আসে! কখন আসে!

এখন,
মা’র চোখে শিশির ভোর,
স্নেহের রোদে
ভিটে ভরেছে।

নিউজবাংলাদেশ.কম/ এফএ

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য