artk
৩ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৭, ৪:১৭ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

দাবি থাকলেও বদলায় না ‘মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের’ নাম

সিনিয়র রিপোর্টার | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ১২৪২ ঘণ্টা, বুধবার ০৮ মার্চ ২০১৭ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৭৩৮ ঘণ্টা, বুধবার ০৮ মার্চ ২০১৭


দাবি থাকলেও বদলায় না ‘মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের’ নাম - নারী
ফাইল ফটো

ঢাকা: মহিলা শব্দটিতে আপত্তি তুলে দীর্ঘদিন ধরে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তনের দাবি থাকলেও তা বদলায়নি। এ ব্যাপারে কার্যত নেই কোন অগ্রগতিও।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

অথচ দীর্ঘদিন ধরেই নারীবাদীসহ বিভিন্ন মহল থেকে মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন করে নারী ও শিশু বিষয়ক করার দাবি করা হচ্ছে।

মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট স্থায়ী কমিটিও আরও ৩ বছর আগে মন্ত্রণালয়কে নাম পরিবর্তনের সুপারিশ করে। কিন্তু ফল নেই। এখনও নারীর প্রতি অবমাননাকর শব্দ মহিলাই ব্যবহার হচ্ছে।

সূত্র বলছে, এ ব্যাপারে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় কোনো উদ্যোগই নেয়নি। কোনো ফাইলও প্রক্রিয়া করা হয়নি।

তবে উদ্যোগ নেয়া হবে বলে নিউজবাংলাদেশকে মঙ্গলবার জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি। তিনি টেলিফোনে প্রতিবেদককে বলেন, “বিষয়টি বিভিন্ন সময় আলোচনায় আসে। আবার হারিয়ে যায়। তবে আমি এবার বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখব।”

তিনি বলেন, “আমি শিগগিরই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করব।”

জানা গেছে, মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন করতে চাইলে তা মন্ত্রিসভার বৈঠকে তুলতে হবে। সেখানে অনুমোদন পেলে তা কার্যকর করা যাবে।   

২০১৪ সালে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন করে ‘নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়’ করার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি।

মহিলা শব্দটিতে নারীর প্রতি কিছুটা অসম্মান দেখানো হয়। ফলে দেশের প্রচলিত সব মূলধারার সংবাদ মাধ্যম মহিলা না ব্যবহার করে নারী শব্দটি ব্যবহার করে থাকেন। তবে বাংলা একাডেমি, মহিলা শব্দের ব্যাখ্যায় বলেছে, সম্ভ্রান্ত নারী।

জানা গেছে, ২০১০ সালে সরকার নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে একটি আইন করে। তার নাম করা হয়েছে, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন। আইনের সব ধারাতে নারী শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া সবশেষ ২০১৩ সালে পাস হওয়া পারিবারিক সসিংসতা প্রতিরোধ ও সুরক্ষা বিধিমালাতেও মহিলা শব্দের ব্যবহারের পরিবর্তে নারী শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে।

জানা গেছে, সরকারি প্রায় সব মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও দপ্তরে নারী শব্দটিই বর্তমানে বেশি ব্যবহার হয়ে থাকে। 

এদিকে, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নামে একটি বেসরকারি সংস্থাও কাজ করছে নারীর অধিকার নিয়ে। নারীর অধিকার নিয়ে কাজ করলেও সংগঠনটিও তার নামের কোনো সংশোধনী আনেনি। অথচ এই সংস্থাটিও তার সকল নথিতে নারী শব্দ ব্যবহার করে থাকে।

 

‘নারী ক্ষমতায়নে দৃশ্যমান সফলতা রয়েছে’

সংরক্ষিত নারী এমপিরা কতটুকু স্বাধীন

এমডি-চেয়ারম্যান পদে নেই কোনো নারী

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসএ/এএইচকে/কেকে

 

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত