artk
১৫ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বুধবার ২৮ জুন ২০১৭, ২:৫০ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

ইসি পুনর্গঠন
আ.লীগের পক্ষ থেকে নতুন প্রস্তাব থাকছে না!

আদিত্য রিমন | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ২০২৫ ঘণ্টা, মঙ্গলবার ১০ জানুয়ারি ২০১৭


আ.লীগের পক্ষ থেকে নতুন প্রস্তাব থাকছে না! - রাজনীতি

ঢাকা: সংবিধানের ১১৮ এর (১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী আগামী নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রস্তাব দেবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। দলটি নেতারা মনে করছেন, নতুন কোনো প্রস্তাব দিয়ে আগামী নির্বাচন কমিশন গঠন করা সম্ভব নয়। কারণ বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ ফেব্রুয়ারি মাসে শেষ হবে। তাই এতো অল্প সময়ে আইন প্রণয়ন করে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন দুষ্কর হয়ে পড়ছে। তাই আগের পদ্ধতি সার্চ কমিটির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রস্তাব তারা রাষ্ট্রপতির কাছে তুলে ধরবে। দলটির একটি বিশ্বস্ত সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র আরো জানান, নির্বাচন কমিশন সংক্রান্ত একাটি আইন প্রণয়নের জন্যেও রাষ্ট্রপতির কাছে প্রস্তাব দেবে আওয়ামী লীগ। তবে সেটা আগামী নির্বাচন কমিশন গঠনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। পরবর্তী নির্বাচন কমিশন গঠনের আগে এ আইন করা যেতে পারে কিনা তার রাষ্ট্রপতিকে জানানো হবে।

বুধবার বিকেল ৪টায় আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে অংশ নেবে।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কী প্রস্তাব ও সুপারিশমালা তুলে ধরা হবে তা ঠিক করতে দলটির পক্ষ থেকে ১০ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য এইচটি ইমামের নেতৃত্বে কমিটির সদস্যরা কয়েক দফায় বৈঠক করে এ সংক্রান্ত একটি রূপরেখা তৈরি করেছিল। এরপর গত ৮ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে বৈঠক করে দলীয় প্রস্তাবনা চূড়ান্ত করে দলটি।

১০ সদস্যের কমিটির এক নেতা বলেন, “কী প্রস্তাব দিবো তা বলতে নিষেধ আছে ওপরের মহল থেকে। তবে একটু বলতে পারি, তেমন কোনো নতুন প্রস্তাব থাকবে না আমাদের পক্ষ থেকে। কারণ নতুন প্রস্তাব বাস্তাবায়ন করে আগামী নির্বাচন কমিশন গঠনের মতো সময় রাষ্ট্রপতির হাতে নেই।”

তিনি আরো বলেন, “সংবিধানের ১১৮ এর (১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি আগামী নির্বাচন কমিশন গঠন করবে। তিনি চাইলে সার্চ কমিটির মাধ্যমে করতে পারেন। আবার চাইলে তিনি সরাসরি নিয়োগ দিতে পারেন। আমাদের রাষ্ট্রপতির ওপর পূর্ণ আস্থা আছে। তিনি যেভাবে করেন আমাদের কোনো আপত্তি নেই। তবে স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক পট পরির্তনের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের বিভিন্ন নির্বাচন এবং নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে একটি তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরা হবে দলের পক্ষ থেকে।”

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে অংশ নেবে দলটির প্রতিনিধি দলের এ সদস্য বলেন, “রাষ্ট্রপতি বরাবর আমরা ১৯৭৫ সাল থেকে শুরু করে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত টানা ২১ বছরের বিভিন্ন নির্বাচন এবং নির্বাচনী ব্যবস্থার সুবিধা ও অসুবিধার চিত্র তুলে ধরা হবে লিখিত আকারে।”

এদিকে, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বৈঠকে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৯ কারা কারা অংশ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নেবে বলে জানান দলটির পক্ষ থেকে। দলটির একটি সূত্রে জানা গেছে, শেখ হাসিনা ছাড়া দলটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, এইচটি ইমাম, তোফায়েল আহমেদ, আবুল মাল আব্দুল মুহিত, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, মো. জমির এ্যাম্বাসেডর, অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, সাহারা খাতুন, মোহাম্মদ নাসিম, সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গির কবির নানক, ডা. দীপু মনি, আইন সম্পাদক আব্দুল মতিন খসরু এবং প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ অংশ নেবেন।

রাষ্ট্রপতি আওয়ামী লীগকে ১০ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে সংলাপে অংশ নিতে আওয়ামী লীগকে দাওয়াত পাঠায়। পরে ক্ষমতাসীনরা রাষ্ট্রপতি দপ্তরে আলোচনা করে ১৯ সদস্যে বাড়িয়ে নেয়।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এআর/এসডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য