artk
মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২২, ২০১৯ ৭:০২   |  ৯,মাঘ ১৪২৫
শুক্রবার, নভেম্বার ১৮, ২০১৬ ১২:৪১

বেফাক মহাসচিব মাওলানা আ. জব্বার মারা গেছেন

media

ঢাকা: বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের (বেফাক) মহাসচিব মাওলানা আবদুল জব্বার জাহানাবাদী মারা গেছেন।

শুক্রবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে রাজধানীর হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

বেফাকের কয়েকজন শীর্ষ দায়িত্বশীল ব্যক্তি এ খবরটি জানিয়েছেন।

৭৯ বছর বয়সী বেফাক মহাসচিব দীর্ঘদিন ধরে কিডনির সমস্যা, ডায়াবেটিস ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। গত সপ্তাহে তাকে প্রথমে খিলগাঁওয়ের খিদমাহ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসকদের পরামর্শে হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হয়। সেখানেই তিনি মারা যান।

মাওলানা আবদুল জব্বার মৃত্যুকালে চার মেয়ে, স্ত্রী, চার ভাই ও এক বোন রেখে গেছেন।

পাঁচ ভাইয়ের মধ্যে মাওলানা আবদুল জব্বার দ্বিতীয়। ১৯৩৭ সালে বাগেরহাট কচুয়া থানার সহবতকাঠি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

বেফাক প্রতিষ্ঠার সময় থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি এ প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে মহাসচিবের দায়িত্ব পালন আসছিলেন তিনি।

মাওলানা আব্দুল জব্বার ১৯৬১ সালে রাজধানীর বড়কাটারা মাদরাসা থেকে দাওরায়ে হাদিস পাস করেন। তিনি ওই মাদরাসায় শিক্ষকতাও করেন। পরে যাত্রাবাড়ি জামিয়া মাদানিয়ার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হন এবং সেখানে কিছুদিন শিক্ষকতা করেন। বেফাকে যোগদানের আগে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের ঢাকা মহানগরের সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করেন কওমি মাদরাসার এ আলেম।

বেফাক সূত্রে জানা যায়, আব্দুল জব্বারের জানাজা বাদ এশা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে অনুষ্ঠিত হবে। দাফনের স্থান এখনো নির্ধরণ হয়নি। তবে তার ইচ্ছা অনুযায়ী গ্রামের বাড়ি বাগেরহাট জেলার কচুয়া থানার সহবতকাঠি গ্রামে মাদরাসার পাশে দাফন করা হতে পারে বলে তার ছোট ভাই সোহরাব হোসেন জানান।

মাওলানা আব্দুল জব্বার ধর্মীয় বিভিন্ন বিষয়ে লেখালেখি করতেন। তার প্রকাশিত গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছেড়- ইসলাম ও আধুনিক প্রযুক্তি, মাদরাসা শিক্ষার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র, ভারত উপমহাদেশে মুসলিম শাসন ও তাদের গৌরবময় ইতিহাস এবং ইসলামে নারীর অধিকার ও পাশ্চাত্যের অধিকার বঞ্চিতা লাঞ্ছিতা নারী উল্লেখযোগ্য।

তার মৃত্যুতে কওমি মাদরাসার আলেম, ইসলামি চিন্তাবিদ ও ইসলামি রাজনীবিদরা শোক জানিয়েছেন।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএ/ এফএ