artk
১ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ৪:২২ অপরাহ্ন

শিরোনাম

শিক্ষায় ভ্যাট নয় বরং ভর্তুকির কথা চিন্তা করা উচিত

জাবের আহামেদ |
প্রকাশ: ১৪৫০ ঘণ্টা, সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ || সর্বশেষ সম্পাদনা: ১৮৪৮ ঘণ্টা, সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫


শিক্ষায় ভ্যাট নয় বরং ভর্তুকির কথা চিন্তা করা উচিত - পাঠকের লেখা

শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড। একটি জাতি যত বেশি শিক্ষিত সে জাতি তত বেশি উন্নত। একটি জাতি যত বেশি শিক্ষিত হবে সে জাতির মেরুদণ্ড তত বেশি শক্তিশালী হবে। একজন মানুষের মেরুদণ্ডের হাড় যত বেশি মজবুত হয় এবং এর গাঁথুনি যত বেশি টেকসই সে ব্যক্তি তত বেশি সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারেন। তেমনি যে জাতির মানুষ জ্ঞানের রাজ্যে যত বেশি বিচরণ করবে সে জাতি তত বেশি গৌরব এবং মর্যাদার অধিকারী হবে।

প্রাচীন যুগের গ্রিকরা এর প্রকৃত উদাহরণ। কেবল সক্রেটিস, প্লেটো, এরিস্টটল কিংবা মহাবীর আলেকজান্ডার গ্রিকদের মধ্য থেকে ব্যক্তিকেন্দ্রিক শিক্ষিত ছিলেন না বরং তাদের সবাই কম বেশি জ্ঞানের চর্চা করতেন। তাইতো কয়েক হাজার বছর আগের সে মানুষগুলোর রচনাবলীর মধ্যে আজও মানুষ কল্যাণ রাষ্ট্রের, আদর্শ রাষ্ট্রের, নীতি তত্ত্বের আলোচনা খোঁজে সে অনুযায়ী রাষ্ট্র এবং জীবন গঠন করতে চায়।

বিশ্বের দরবারের যতগুলো জাতি স্বতন্ত্র অস্তিত্ব পেয়েছে তার সবগুলো জাতিই জ্ঞান-বিজ্ঞানের চর্চা করে বিশ্ববাসীর কাছে তাদের জাত চিনিয়েছে। সব যুগেই কিছু কিছু ব্যতিক্রম ছিল, আছে থাকবে। তিক্ত হলেও সত্য যে, সে ব্যতিক্রমীদের মধ্যে বাঙালিরা অর্থাৎ আমরাও শামিল হয়েছি।

সম্প্রতি জাতীয় সংসদে বর্তমান ২০১৫/১৬ অর্থ বছরের বাজেট অধিবেশনের ৩০ জুন অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাবিত এবং জাতীয় সংসদে পাসকৃত প্রস্তাবে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আয়ের ওপর সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট/মুসক আরোপ করা হয়েছে।

ভ্যাট সাধারণত কোন প্রোডাক্ট বা পণ্যের ওপর বসানো হয়। অর্থাৎ আমি যেটা উৎপন্ন করছি না কিন্তু ভোগ করছি তার ওপর ভ্যাট প্রযোজ্য। কিন্তু সরকার বেসরকারি শিক্ষায়, যেমন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, ইঞ্জিনিয়ারিং ইউনিভার্সিটি, মেডিকেল কলেজ এবং ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলগুলোর ওপর অযৌক্তিকভাবে ১০ শতাংশ ভ্যাট অরোপের প্রস্তাব করে এবং তা কমিয়ে ৭.৫ শতাংশ করে ১ জুলাই থেকে কার্যকর করে। শিক্ষার ওপর ৭.৫ শতাংশ কেন ১ শতাংশ ভ্যাট হলেও সেটা কেন? কথা হচ্ছে শিক্ষা কি পণ্য? এটা কি শিক্ষার্থীরা কোন দোকান থেকে দরদাম করে কিনছে না অর্জন করছে? এটা কি একজন শিক্ষার্থীর সংবিধানিক অধিকার না রাষ্ট্রের করুণা? এর কোন সদুউত্তর অর্থমন্ত্রী কিংবা সরকারের কোন মহল থেকে এখন পর্যন্ত পরিষ্কার করেনি। শুধু বাজেট ঘোষণা করার সময় সোনা-রুপার সাথে শিক্ষার তুলনা করে শিক্ষার্থীদের ওপর ৭.৫ শতাংশ করের বাড়তি বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হয়।

এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে, আমাদের মেরুদণ্ড থাকবে কি?

এ বছর আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ১০ লাখ ৬১ হাজার ৬১৪ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন। এর মধ্যে পাস করেছেন ৭ লাখ ৩৮ হাজার ৮৭২ জন। গড় পাসের হার ৬৯ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং এবার সারা দেশে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪২ হাজার ৮৯৪ জন।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী দেশের ৩৪টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট আসন সংখ্যা ৩৯ হাজার ৮৮০টি। এইচএসসি পাস করা ৭ লাখ ৩৮ হাজার ৮৭২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে মাত্র ৩৯ হাজার ৮৮০ জন পাবেন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার সুযোগ। আর বাকি ৬,৯৮,৯৯২ জন কোথায় যাবেন? কার কাছে যাবেন? ছাত্র-রাজনীতির প্রভাব কম থাকা, উপযুক্ত সময়ে উচ্চশিক্ষা শেষ করার সুযোগ, কর্পোরেট জগতে চাহিদার কারণে এই শিক্ষার্থীদের বিরাট একটা অংশ যাবেন প্রাইভেট ভার্সিটিতে।

বলা হয়ে থাকে, বিশ্ববিদ্যালয় এমন এক জায়গা যেখানে সব শ্রেণির, সব মতামতের মানুষের আনাগোনা থাকে। যদি তাই হয়, তবে বলতেই হবে, প্রাইভেট ভার্সিটিতে যেমন সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্ম নেওয়া শিক্ষার্থী ভর্তি হয়, ঠিক তেমন ৪-৫ টা টিউশনি করে পড়ার খরচ চালাবার মত শিক্ষার্থীও ভর্তি হন। দেশ বরেণ্য লেখক, রাজনীতিবীদ-মন্ত্রী-এমপি, ব্যবসায়ীর সন্তানকে যেমন দেখেছি, ঠিক তেমনই টাঙ্গাইল-সিলেট মহাসড়কে চালানো বাসের ড্রাইভার, সরকারি অফিসের স্বল্প আয়ের কেরানির সন্তানকেও দেখেছি প্রাইভেট ভার্সিটিতে পড়াশোনা করতে।

তাই ধনীর দুলালরা অতিরিক্ত এই ভ্যাট পরিশোধ করতে সমর্থ হলেও একটা বিরাট অংশ যারা দারিদ্রতাকে হার মানিয়ে এত দূর এসেছেন তারা অকালেই হারিয়ে যাবেন। সরকারের এই চাপিয়ে দেওয়া ভ্যাট সিদ্ধান্তের কারণে অনেকে হয়তো আবার মাঝ পথেই টাকার অভাবে ছিটকে যাবেন।

আর বাংলাদেশের কিছু মানুষের ভুল ধারণা হচ্ছে যে তুলনামূলকভাবে কম মেধাবীরা প্রাইভেট ভার্সিটিতে ভর্তি হন। তাদের উদ্দেশ্যে বলবো, আপনারা কি জানেন নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করে বিসিএস পরীক্ষা দিয়ে বাংলাদেশ পুলিশ ফোর্সে গর্বের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন মাশরুফ হোসাইন ভাই, এছারাও সম্প্রতি ৩৪তম বিসিএস পরীক্ষায় প্রাইমএশিয়া ইউনিভার্সিটির এম.এ. ইউসুফ শিশির ভাইকে অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার ট্যাক্স পদে নিয়োগ দেয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। চোখ-কান খোলা রাখলে এরকম অজস্র উদাহরণ পাবেন।

বিভিন্ন জায়গায় সভা-সমাবেশে মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর সরকার শিক্ষার্থীদের চাপ কমাতে চায় এবং এক্ষেত্রে সরকারের বিভিন্ন সীমাবদ্ধতা আছে। তাহলে সরকারের উচিত হবে প্রাইভেট ভার্সিটির ওপর ভ্যাট প্রত্যাহার করা এবং প্রাইভেট ভার্সিটিগুলোর জন্য একটা আদর্শ ও সময়-উপযোগী নীতিমালা প্রণয়ন করা যাতে লাখ লাখ শিক্ষার্থী ঝরে না যায়।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেখানে শিক্ষার্থীদের জন্য সরকার প্রাইভেট ভার্সিটিগুলোতে ভর্তুকি দেয় সেখানে আমাদের দেশে সরকারের এ ধরণের সিদ্ধান্ত যে খুব একটা মঙ্গলজনক হবে না তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

শিক্ষা মানুষের জন্মগত একটি মৌলিক অধিকার। এই অধিকার রাষ্ট্রের সবার। এই অধিকার সমুন্নত রাখা রাষ্ট্রের দায়িত্ব। তাই শিক্ষাকে সবার জন্য সহজলভ্য করা উচিত। শিক্ষায় বৈষম্য কোন কালে যখন গ্রহণযোগ্য হয়নি, আজও হতে পারে না।

বর্তমানে বেসরকারি শিক্ষায় ভ্যাট আরোপ করে সরকার শিক্ষার্থীদের মাঝে যে বৈষম্য সৃষ্টি করেছে তা ভবিষ্যত বাংলাদেশের জন্য হুমকি স্বরূপ।

দেশটাকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত করতে হলে শিক্ষাকে গণমুখী ও সহজলভ্য করার বিকল্প নাই। তাই শিক্ষায় ভ্যাট নয় বরং ভর্তুকির কথা চিন্তা করা উচিত।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, এ দেশের তরুণ সমাজ আপনাকে নিজের মায়ের মতো মর্যাদা দেয় ও ভারোবাসে, বিভিন্ন সময়ে তরুণ সমাজের জন্য আপনার সাহসী সিদ্ধান্তগুলো নিয়ে তারা অহংকার করে। আপনার ডিজিটাল বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ কিন্তু এই তরুণ শিক্ষার্থী সমাজ। এই সংকটময় পরিস্থিতে ছাত্রসমাজ আপনার হস্তক্ষেপ কামনা করে।

লেখাটা শেষ করবো নোবেল প্রাইজ প্রাপ্ত দক্ষিণ-আফ্রিকার জনপ্রিয় নেতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি নেলসন ম্যান্ডেলার একটা উক্তি দিয়ে– “Education is the most powerful weapon which you can use to change the world.”

নিউজবাংলাদেশ.কম/আরবিএস/এসজে

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত