artk
৭ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রোববার ২১ জানুয়ারি ২০১৮, ৪:৫৫ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

চট্টগ্রাম বন্দরে দেড় কোটি টাকার কাপড়ের চালান আটক

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা | নিউজবাংলাদেশ.কম
প্রকাশ: ২২৫৬ ঘণ্টা, বৃহস্পতিবার ১৬ নভেম্বর ২০১৭


চট্টগ্রাম বন্দরে দেড় কোটি টাকার কাপড়ের চালান আটক - জাতীয়

চট্টগ্রাম বন্দরে খালাসের সময় ভুয়া দলিলে অবৈধভাবে বন্ডের আওতায় আমদানি করা প্রায় দেড় কোটি টাকা মূল্যের একটি কাপড়ের চালান আটক করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার কায়িক পরীক্ষা শেষে শুল্ক গোয়েন্দা নিশ্চিত হয়। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

চালানটির আমদানিকারক অ্যাপারেল অপটিকস প্রাইভেট লিমিটেড। একটি সিএন্ডএফ এজেন্টের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি ৮ নভেম্বর বিল অব এন্ট্রি দাখিল করে। পণ্যের চালানটি চীন থেকে আনা হয়।

ভুয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে শুল্কায়নের মাধ্যমে চালানটি খালাসের চেষ্টা করা হয়। ইউসিবিএল ব্যাংকের এলসি ও অন্যান্য কাগজ দিয়ে খালাসের প্রচেষ্টা করা হয়।

শুল্ক গোয়েন্দা আটকের পর বৃহস্পতিবার শতভাগ কায়িক পরীক্ষা করে আটক করা হয়। কায়িক পরীক্ষায় ৩৬ টন উন্নতমানের কাপড় পাওয়া যায়।

আমদানিকারকের মনোনীত সিএন্ডএফ এজেন্ট কর্তৃক দাখিল করা দালিলাদি যাচাই করে সেলস কন্ট্রাক্ট ভুয়া ধরা পড়ে।

জালিয়াতির মাধ্যমে ব্যাংক কর্মকর্তার স্বাক্ষর নকল করে ও ভুয়া দলিলাদি দাখিল করে প্রতিষ্ঠানটি বন্ডের আওতায় পণ্য এনেছে।

সেলস কন্ট্রাক্ট ভুয়া হওয়ায় পণ্য চালানটিতে শুল্ক ফাঁকির ঝুঁকি ছিল। পণ্যটি খালাস হলে খোলা বাজারে বিক্রয় হতো। চালানটিতে ৪৯৯ রোল পলিয়েস্টার কাপড় রয়েছে যার শুল্ক-করাদিসহ বাজার মূল্য প্রায় দেড় কোটি টাকা।

রপ্তানির উদ্দেশ্যে আমদানিকৃত হিসেবে জাল দলিলাদি দেখিয়ে কোন শুল্ক করাদি পরিশোধ ব্যতিরেকেই খালাস নেয়ার চেষ্টা করা হয়।

পণ্যচালানটির প্রযোজ্য শুল্ক-করাদি আদায়, ন্যায় নির্ণয়নসহ দলিলাদি জালিয়াতির জন্য অভিযুক্ত আমদানিকারক এবং সিএন্ডএফ এজেন্টসহ জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান মইনুল খান।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসডি

নিউজবাংলাদেশ.কমে প্রকাশিত যে কোনও প্রতিবেদন, ছবি, লেখা, রেখাচিত্র, ভিডিও-অডিও ক্লিপ অনুমতি ছাড়া অন্য কোনও মাধ্যমে প্রকাশ, প্রচার করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।
আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত